শ্রীপুরে শিশুকে গনধর্ষন, গ্রেফতার-১ Latest Update News of Bangladesh

বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:১৫ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
Latest Update Bangla News 24/7 আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ভয়েস অব বরিশালকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] অথবা [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।*** প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বরিশাল বিভাগের সমস্ত জেলা,উপজেলা,বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড ও ক্যাম্পাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! ফোন: ০১৭৬৩৬৫৩২৮৩




শ্রীপুরে শিশুকে গনধর্ষন, গ্রেফতার-১

শ্রীপুরে শিশুকে গনধর্ষন, গ্রেফতার-১




অনলাইন ডেস্ক: বরিশাল জেলার মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলাধীন শ্রীপুরে শিশুকে গনধর্ষনের সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিককে হত্যার হুমকি দিয়েছে অভিযুক্তরা। শনিবার (২০ এপ্রিল ২০১৯)বেলা সোয়া ৯টায় সাবেক মেম্বার মাহমুদ বেপারী,বর্তমাণ মেম্বার শাজাহান মৃধা,মোহাম্মদ হাফেজ খাঁনের নির্দেশে কতিপয় সন্ত্রাসীরা জাতীয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল ডিজিটাল বিডিনিউজ টুয়েন্টিফোর ডটনেট পত্রিকার প্রকাশক-সম্পাদক, জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাব ও সম্পাদক পরিষদ এবং অনলাইন সাংবাদিক কল্যাণ সমিতির সদস্য এম মাজহারুল ইসলাম এর গ্রামের বাড়িতে উপস্হিত হয়ে তুলে নেয়ার চেষ্টা চালায়।এ সময়ে প্রকাশ্যে সন্ত্রাসীরা হুমকি দিয়ে বলেছেন,দাফন-কাপড়ের সঞ্জাম কিনে রাখবি!তোর সময় শেষ।উল্লেখিত তিন মেম্বার, মেহেন্দিগঞ্জ থানার পুলিশ,শ্রীপুর পুলিশের ক্যাম্পের ইনচার্জ মোঃ হুমায়ূন,কথিত সাংবাদিক ইব্রাহিম নাম ভাঙিয়ে বলেছেন,এদের নির্দেশ তোকে খুন করে লাশ গুম করলেও আমাদের কিছুই করতে পারবি না!

উল্লেখ্য চলতি বছরের ১ মার্চ শুক্রবার জুমার নামাযের পরে শ্রীপুর গ্রামের মৃত কাদের বেপারীর ছেলে বেল্লাল বেপারী(২৯),প্রবাসী আবুল মাঝির ছেলে আরিয়ান আহম্মেদ তামিম(২৩) একই গ্রামের দিনমজুর ইদ্রিস মোল্লার পরিবারের সকলে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে বেড়াতে যান।তার ছোট মেয়ে ছদ্মনাম মাহমুদা(১২) ঘরে রেখে গিয়েছিলেন।লম্পটরা মাহমুদাকে একা পেয়ে পানি খাওয়ার অজুহাতে ঘরের মধ্যে প্রবেশ করে জোরপূর্বক পরনের সেলোয়ার-কামিজ ছিড়ে,বুকের স্তন ক্ষতবিক্ষত করে পর্যাক্রমে ধর্ষন করে।ভিকটিম ডাক-চিৎকার দেয়ায় স্হানীয়রা মসজিদের মুসল্লীরা গিয়ে ভিকটিম উদ্ধার করেছিল।স্হানীয়রা হাতেনাতে ধর্ষকদের আটক করেছিল।অভিযুক্তরা মৃত মন্নান মাঝির ছেলে রেজাউল মাঝির আতœীয় হওয়ায় মোটা অংকের টাকার প্রলোভন দেখিয়ে অভিযুক্তদের মুসল্লীদের কাছ থেকে ছাড়িয়ে নেয়

এঘটনার দিন বিকালে ভিকটিমের পিতা ইদ্রিস মোল্লা শ্রীপুর পুলিশ ক্যাম্পের(ইনচার্জ)এসআই হুমায়ূন কবীবের কাছে ৩জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেয়। পুলিশ রেজাউল মাঝিকে আটক করে।পরে অভিযুক্তদের হাজির করার শর্তে রেজাউল মাঝিকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ।ভিকটিমের বড় ভাই ইউসুফ মোল্লা,দুই ভগ্নিপতি,ছোট মামা মাওঃ আবুল কাসেম আবদুল্লাহ সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেছিলেন।

জাতীয় অনলাইন ডিজিটাল বিডিনিউজ টুয়েন্টিফোর ডটনেট পত্রিকায়

শ্রীপুরে সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রীকে গনধর্ষন-জনতার হাতে আটক ধর্ষকরা-পুলিশের কাছে হস্তান্তর করলেও ছেড়ে দিয়েছেন

শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। সংবাদটির লিংক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক,ম্যাসেঞ্জার,হোয়াটস অ্যাপস,ইমোর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী,স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী,আইনমন্ত্রী,আইজিপি,ডিআইজি,ডিসি,এসপি,এমপি সহ সংশ্লিট সকল দপ্তরে অবগত করা হয়।এপরিপ্রক্ষিতে ওই সকল দপ্তরের নির্দেশনায় ১৫ মার্চ গভীর রাতে মেহেন্দিগঞ্জ থানার পুলিশ অভিযুক্ত ৩জনকে আটকের পর বরিশাল এএসপি সুকুমার রায়(সার্কেল মেহেন্দিগঞ্জ) সরোজমিনে গিয়ে তদন্তে করে।একারনেই তার নাম ভাঙিয়ে মোটা অংকের ঘুষ নিয়ে অভিযুক্তদের ছেড়ে দিয়েছেন।
অতঃপর ওই ঘটনাটি সরকার প্রধান সংশ্লিট সকল কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছিল।দেশীয়-আন্তর্জাতিক সকল মিডিয়ার সংবাদকর্মীদের অবহিত করায় ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি পূর্বক সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় চাপের মুখে অভিযুক্ত বেল্লাল বেপারীকে ১৯ এপ্রিল আটক করে পুলিশ।

মেহেন্দিগঞ্জ থানার ওসি”র বিরুদ্ধে দূর্নীতি-অনিয়মের এন্হার অভিযোগ-ওসি শাহীন খানকে ক্লোজড!

এঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ থাকলেও ক্ষমতা ও টাকা প্রভাবে পার পেয়ে যাচ্ছেন।ওই ঘটনার দুই সপ্তাহ যেতে না যেতে আরোও একটি ঘটনা ঘটেছে ছিল। সেই ঘটনাটি টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা পড়েছে।

শ্রীপুর হাইস্কুলের দশম শ্রেণীর ২ ছাত্রীকে গণধর্ষণ-শালিস-মিমাংসার নামে ৫লাখ টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা- ২৬ দিনেও মামলা হয়নি!

বাহেরচর গ্রামের আ.লীগের সভাপতি দিদারুল ইসলাম জানিয়েছে,আলিমাবাদ ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার মাহমুদ বেপারীর সন্ত্রাসী ওরা ১১জন বড়ই ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী নামে পরিচিত শ্রীপুর এলাকায় সন্ত্রাসী ও ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে।চুরি-ডাকাতি,গরীবের মালামাল আত্মসাৎ,জাল- জালিয়াতি রেকর্ড সৃষ্টির মাধ্যমে প্রতারনা পূর্বক কোটি কোটি টাকা ও সরকারী জমি এবং অন্যের জমি আত্মসাৎ,জুয়া খেলা,নারী-শিশু নির্যাতন ও ধর্ষন,গনধর্ষন,সরকারী স্কুলের জমি দখল করে মার্কেট,খাল দখল,নারী-শিশু পাচার,অস্ত্র-চোরাচালানী,মাদক ব্যবসা,অস্ত্রের মহরা,খুন-জখম,মারামারি,সাম্প্রাদায়িক দাঙ্গা-হামাঙ্গা,রেশনের চাল চুরি প্রভৃতি জঘন্যতম অপরাধ করে বেড়াচ্ছে। স্হানীয় সংসদ সদস্য পংকজ নাথের নাম ভাঙিয়ে সন্ত্রাসীরা দেউলিয়া বাহিনীতে পরিণত হচ্ছে।সন্ত্রাসীরা অস্ত্রের মহরা দিয়ে শ্রীপুরের ১৫০১ দাগে দুইশ একর,মহিষমারী,ঘাঘরাটুমচর,লড়াইপুর চরের ২হাজার একর সরকারী জমি দখল নিয়ে সর্বদাই অপরাধ কর্মকান্ডে লিপ্ত রয়েছে।শ্রীপুরের পুলিশ ক্যাম্পের পুলিশ সদস্যরা সন্ত্রাসীদের নিরাপত্তা নিয়োজিত হয়ে বডিগার্ড কাজ করছে।শ্রীপুরে পুলিশ এদের‌ সহযোগিতা না করলে তারা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করার সাহস পেতে না।ওইসকল সন্ত্রাসীরা জাতীয় পার্টি আ.লীগ হয়ে প্রকৃত পরীক্ষিত-ত্যাগী,সৎ-ন্যায়,নির্ভীক আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীর উপর অমানুষিক নির্যাতন ও নিপীড়ন চালাচ্ছে।এম মাজহারুল ইসলাম প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ করে সত্য-বস্তুনিষ্ট সংবাদ প্রকাশ করায় একাধিকবার হত্যার চেষ্টায় অপহরণ পূর্বক নির্যাতন চালিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী,স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী,আইনমন্ত্রী,তথ্যমন্ত্রী,খাদ্যমন্ত্রী,ভূমিমন্ত্রী,আইজিপি,ডিআইজি,বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার,ডিসি,এসপির নির্দেশনায় একাধিকবার তদন্ত পূর্বক আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির ব্যবস্হা নেয়ার আশ্বাস দিলেও পুলিশকে মোটা অংকের মাসোহারা দিয়ে আসছে।পুলিশ তাদের গ্রেফতার করছেনা।এ ঘটনায় সাংবাদিক এম মাজহারুল ইসলাম বাদী হয়ে উল্লেখিত দপ্তরে অভিযোগ করায় বরিশাল পুলিশ অফিস(প্রঃশাঃ) ১৫-১৬ভি/১২৭২,৫ জুন ২০১৭ বরিশাল সহকারী পুলিশ সুপারের (মেহেন্দিগঞ্জ সার্কেল) সুকুমার রায় অনুসন্ধানের নামে একশ পারসেন্ট সত্য ঘটনার তদন্ত আলো মুখ দেখিনি।অভিযুক্তদের আইনের আওতায় আনতে পারেনি পুলিশ প্রশাসন।

শ্রীপুর গ্রামের আ.লীগের সভাপতি মোঃ ফরিদ হাওলাদার ঘটনার সত্যতা স্বীকার পূর্বক সহমত পোষণ করেছে।তিনি আরোও জানায়,শ্রীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ হারুন অর রশীদ মোল্লা কোনো শালিস-বিচার করেছেনা।পুলিশ শালিস- মিমাংসার নামে বিচারের কোর্ট বসিয়ে লাখ লাখ হাতিয়ে নিচ্ছে।শ্রীপুর ক্যাম্পের পুলিশের কাছ থেকেও এএসপি মাসোহারা লক্ষাধিক টাকা নেয়।গত শুক্রবার লাহারহাট খবর দিয়ে নিয়াছে।শ্রীপুর ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই হুমায়ূন কবীর লাহারহাট গিয়ে মাসিক চাঁদা দিয়েছে।থানার পুলিশও চাঁদা নেয়।উপরের মহলেও এভাবে চাঁদা নেয়া হচ্ছে।

শ্রীপুর ইউপির সদস্য মোঃ নোমান মোল্লা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন,শিশু নির্যাতন ঘটনার সংবাদ প্রকাশের পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী,আইজিপি,ডিআইজি,এসপির নির্দেশনায় ১৫ এপ্রিল শুক্রবার এএসপি সুকুমার রায় শ্রীপুর সরোজমিনে তদন্ত আসে।এর পূর্বে শিশু নির্যাতন সঙ্গে জড়িতদের ভিকটিম ও ভিকটিমের পিতা সহ আটক করে থানার পুলিশ।এএসপি সুকুমার রায় ভিকটিম ও তার পিতা সহ অভিযুক্তদের কথিত স্প্রিডবোর্ড ভাড়াসহ যাবতীয় খরচ বাবদ মোটা অংকের টাকা নিয়ে ছেড়ে দেন।ওইদিন সন্ধ্যায় শ্রীপুর গ্রামের মেম্বার শাজাহান মৃধা,আমিনুল জোমাদার,অসীম হাওলাদার,আমাজাদ মৃধা,মিজান হাওলাদার,হুমায়ূন গাজী,গাফ্ফার খান,আমার মামা মাহমুদ বেপারী,মাইদুল জোমাদার সহ ১৫/২০জন মিলেমিশে বলে তোর ভাগ্নে সাংবাদিক মাজহারুল ইসলামকে পুলিশের নির্দেশ হাত-ভেঙ্গে,চোখ তুলে দেয়া হবে।তুই কি?ওরে ভালো হতে বলবি নাকি! তখনই আমি ফোন করে অবগত করেছি।এসময়ে আমার ভাগ্নে মাজহারুল ইসলাম জানিয়েছে,আমি ২০০৩ সালেই মৃত্যুর প্রস্তুতি নিয়ে সাংবাদিকতা শুরু করেছি।আমার দাফন-কাপনের সঞ্জাম ক্রয় করা আছে।

এব্যাপারে মেম্বার মাহমুদ বেপারী সাংবাদিকদের জানায়,অতিরঞ্জিত কিছুই ভালো নয়।সবই কিছুই সীমারেখা আছে।ভূয়া সংবাদ প্রকাশ করায় পোলাপাইন ক্ষিপ্ত হয়েছে।আমার কিছুই করার নেই।

শ্রীপুর গ্রামের মেম্বার শাজাহান মৃধা সাংবাদিকদেরকে জানিয়েছে,এর আগেও একাধিক সাংবাদিক ভূয়া সংবাদ প্রকাশ করে মার খেয়েছে,তাদের কিছুই হয়নি।সাংবাদিক মাজহারুল ইসলাম ৮/১০ মার খেয়েছে। তিন তিনবার প্রায় দুইমাস জেলে খেটেছে।সে ৬/৭টি মামলা খেয়েছে,কি প্রয়োজন এসব করার?

এবিষয়ে শ্রীপুর ইউনিয়নের আ.লীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান মোঃ হারুন অর রশীদ মোল্লা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন,অনেক সময় বিষও খেয়ে হজম করতে হচ্ছে।সাংসদ পংকজ নাথের নির্দেশ ব্যতিত পাতাও নড়েনা।আমি ওদের কাছে জিম্মি!এমপি সব কিছু জানলেও রামবাবুর দায়িত্বে সব ছেড়ে দেন। একজন চেয়ারম্যান উন্নয়নের সার্থে এমপির অনুগত থাকতে হয়। সাংবাদিকরা রাষ্ট্রের চতুর্থ যন্ত্র।জাতির সকল সমস্যা সমাধানে জনগনের মুখপাত্র হয়ে জীবন বাজি রেখে কাজ করে।

এব্যাপারে বরিশাল পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে,তিনি বলেন-পুলিশ অপরাধীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্হা নেবে।অপরাধের সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেয়া হবে।

এবিষয়ে উপ মহাপরিদর্শক(ডিআইজি) সাংবাদিকদের জানিয়েছে,আমরা অপরাধ নির্মূলে সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।অপরাধী যেহোক তাদেরকে ছাড় নেই।বিচারের মূখোমুখি করা হবে।আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে পুলিশ যথেষ্ট ভূমিকা রেখেছে।

বাংলাদেশ পুলিশের অহংকারের প্রতীক ও গৌরবময় উজ্জ্বল নক্ষেত্র বলে পরিচিত।পুলিশ মহা পরিদর্শক(আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাভেদ পাটোয়ারী সাংবাদিকদের জানায়,পুলিশ-সাংবাদিক এক বৃত্তের দু”টি ফুল।সাংবাদিকের পেশা ও পুলিশের পেশা অভিন্ন হলে কাজ একই।সাংবাদিকরা যেভাবে পেশা প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে পরিশ্রম করে সঠিকভাবে সংবাদ প্রকাশের মাধ্যমে জনগনের কাছে সত্য তুলে ধরেন।এভাবে পুলিশ কাজ করলেই দূর্নীতি-অনিয়মের,মাদক-সন্ত্রাসীমুক্ত সমাজ গঠন সম্ভব।অপরাধীর কোনো রাজনৈতিক পরিচয় নেই।অপরাধীকে তাদের অপরাধের বিচনায় নিয়ে কঠোর শাস্তির ব্যবস্হা করতে হবে।পুলিশের কেউ যদিও অপরাধীকে বাঁচানোর চেষ্টা করে।অনুসন্ধান পূর্বক তাদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দেয়া হবে।

এবিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোঃ আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এমপি সাংবাদিকদের জানান,বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করা নির্দেশ দেয়া হয়।অপরাধীদের বাঁচানোর জন্য পুলিশের কোনো গাফলতি বরদাশত করা হবেনা।তাই খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সুত্র,ডিজিটাল বিডিনিউজ টুয়েন্টিফোর ডটনেট

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *










Facebook

Shares
© ভয়েস অব বরিশাল কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD
Shares