পলিটেকনিকে ১৭৫ শিক্ষার্থীর অনিশ্চিত ভবিষ্যত ! Latest Update News of Bangladesh

শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:১৩ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
Latest Update Bangla News 24/7 আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ভয়েস অব বরিশালকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] অথবা [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।*** প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বরিশাল বিভাগের সমস্ত জেলা,উপজেলা,বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড ও ক্যাম্পাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! ফোন: ০১৭৬৩৬৫৩২৮৩




পলিটেকনিকে ১৭৫ শিক্ষার্থীর অনিশ্চিত ভবিষ্যত !

পলিটেকনিকে ১৭৫ শিক্ষার্থীর অনিশ্চিত ভবিষ্যত !

পলিটেকনিকে ১৭৫ শিক্ষার্থীর অনিশ্চিত ভবিষ্যত !,voiceofbarishal.com




নিজস্ব প্রতিবেদক: পরীক্ষার জন্য ফরম ফিলাপ করতে দেয়া হচ্ছে না সরকারি বরিশাল পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের ১৭৫ জন শিক্ষার্থীকে। শ্রেনী কক্ষে অনেকের সরব উপস্থিতি থাকা সত্বেও কোনো নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ফরম ফিলাপ করতে না পারা শিক্ষার্থীরা। তবে কর্তৃপক্ষ বলছেন, শ্রেনী কক্ষে যাদের উপস্থিতি ছিলো না তাদের বিষয়ে আমরা একাডেমিক কাউন্সিলের সভার মাধ্যমে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এছাড়া এর আগেও এই শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সাথে শ্রেনী কক্ষে উপস্থিত থাকার বিষয়ে যোগাযোগ করা হয়েছে। তবে তারা এতে কর্নপাত করেননি।

শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, কলেজের ৮ ডিপার্টমেন্টের ১৭৫ জন শিক্ষার্থীকে অহেতুকভাবে এই ভোগান্তিতে ফেলা হয়েছে। এদের মধ্যে অনেকে ক্লাস করতে পারেনি। এর যথোপযুক্ত কারণও রয়েছে।

আশিকুল ইসলাম নামে এক ছাত্র জানান, আমাদের কলেজের একটি মেয়ে প্রেগন্যান্ট ছিলো, যে কারণে সে ক্লাসে আসতে পারেনি। এখন তাকেও পরীক্ষায় ফরম ফিলাপ করতে দিচ্ছে না কলেজ কর্তৃপক্ষ। শুধু তাই নয় উদ্দেশ্যে প্রণোদিত ভাবে শিক্ষার্থীদের এমন একটি পরিস্থিতিতে ফেলা হয়েছে দাবী এই ছাত্রর। তিনি আরো জানান, আমাদের অভিভাবকরা সকাল থেকে কলেজে বসে রয়েছে।

কিš‘ কলেজ প্রশাসন তাদের সিদ্ধান্ত থেকে অটল। সকাল বেলায় একটি নোটিশ টাঙিয়ে দেয়া হয় কলেজের নোটিশ বোর্ডে। শিক্ষার্থীরা ভর্তি হতে এসে দেখতে পায় তারা ভর্তি হতে পারবেন না। নতুন এমন নিয়মে আমরা সকলেই বিপাকে পড়েছি। অনেক শিক্ষকও এই সিদ্ধান্তের বিরোধীতা করছেন। সব মিলিয়ে আমরা যদি ভর্তি হতে না দেয়া হয় তাহলে সকল শিক্ষার্থীর সমন্বয়ে আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে। ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন করে এই আন্দোলন কর্মসূচী দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

বরিশাল পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট সূত্রে জানা গেছে, ২য়, ৪র্থ ও ৬ষ্ঠ সেমিষ্টারের ১৭৪ জন শিক্ষার্থী এই সমস্যায় পড়েছেন। এর মধ্যে সিভিল ডিপার্টমেন্টের ৩১ জন, ইলেক্ট্রিক্যাল ডিপার্টমেন্টের ৩০জন, পাওয়ারের ২১ জন, মেকানিক্যালের ১৬ জন, ইলেক্ট্রনিক্স ডিপার্টমেন্টের ২৯ জন, কম্পিউটারের ১৬ জন, ইলেক্ট্রোমেডিকেলের ৩১ জন এবং ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ডিপার্টমেন্টের ০১জন শিক্ষার্থী ২৩ জুন অনুষ্ঠিতব্য সমাপনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না।

এই ইন্সটিটিউট থেকে যে নোটিশ দেয়া হয়েছে তাতে উল্লেখ করা হয়, বর্নিত রোল নম্বরের ছাত্র ছাত্রীরা ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত তাদের ক্লাসে উপস্থিতি সন্তোষজনক না থাকায় বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের ২০১৬ প্রবিধানের ৪.১ ধারা অনুযায়ী এবং ২৪ এপ্রিল অনুষ্ঠিত একাডেমিক কাউন্সিলের ০২নং সিদ্ধান্ত মোতাবেক ১৭৫ জন ছাত্র-ছাত্রীকে ফরম ফিলাপ থেকে বিরত থাকতে বলা হয় এবং তারা ২৩ জুন অনুষ্ঠিতব্য সমাপনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন না বলেও জানানো হয় ওই নোটিশে।

এসব বিষয়ে সরকারি বরিশাল পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী রুহুল আমিন জানান, যারা একেবারেই ক্লাস করছে না তাদেরকে আমরা এর আগে চিঠি দিয়েছি।

সব মিলিয়ে ১৬শ অভিভাবকে চিঠি দেয়া হয়েছে। এছাড়াও ৮শ অভিভাবকের সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হয়েছে। কিন্তু তারপরেও অনেক শিক্ষার্থী কোনো ক্লাসই করেনি। দুই সেমিস্টার মিলিয়ে আমরা যে তালিকা করেছি তাতে ১৭৪ জন শিক্ষার্থী একেবারেই ক্লাস করেনি।

তাদেরকে আমরা পরীক্ষা দিতে দেবনা। একাডেমিক কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত মোতাবেক আমরা এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *










Facebook

Shares
© ভয়েস অব বরিশাল কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD
Shares