পরকীয়ার অভিযোগে ১০০টি জুতাপেটা Latest Update News of Bangladesh

শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০৭:১৯ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
Latest Update Bangla News 24/7 আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ভয়েস অব বরিশালকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] অথবা [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।*** প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বরিশাল বিভাগের সমস্ত জেলা,উপজেলা,বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড ও ক্যাম্পাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! ফোন: ০১৭৬৩৬৫৩২৮৩




পরকীয়ার অভিযোগে ১০০টি জুতাপেটা

পরকীয়ার অভিযোগে ১০০টি জুতাপেটা

পরকীয়ার অভিযোগে ১০০টি জুতাপেটা




ভয়েস অব বরিশাল ডেস্ক॥ মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলায় পরকীয়ার অভিযোগে কথিত ভাই-বোনকে ১০০টি করে জুতাপেটা করেছেন স্থানীয় সালিসকারীরা। পরে তাদের জুতার মালা পরিয়ে এলাকায় ঘোরানো হয়। বিষয়টি মঙ্গলবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে।

 

 

এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সালিসকারী তিনজনকে গত রোববার গ্রেফতার করা হয়। পরে আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

 

 

পুলিশ ও এলাকার কয়েকজন বাসিন্দারা জানায়, সদর উপজেলার এক ব্যক্তিকে রাজৈর উপজেলার বাজিতপুর ইউনিয়নের এক ব্যক্তির স্ত্রী ‘ধর্মের ভাই’ বানান। পরে তারা ‘ধর্ম ভাই-বোন’ হিসেবে উভয়ের বাড়িতে আসা-যাওয়া করেন। ১৯ এপ্রিল সকাল ৯টার দিকে ওই ভাই ধর্মের বোনের বাড়িতে আসেন। সেদিন ওই বোনের স্বামী বাড়িতে ছিলেন না। ওই ভাই বোনের বাড়িতে আসার কিছুক্ষণ পরই একই বাড়ির কালু ফকির, ইমরান ফকির, শাকিব আকন, রানা ফকির, শামীম ফকিরসহ ৮-১০ জন ওই ভাই ও বোনকে ঘর থেকে টেনেহিঁচড়ে বের করে আনেন। পরে তারা ওই ভাই-বোনকে বেঁধে ফেলেন।

 

 

একপর্যায়ে বাড়ির উঠানে সালিস বসানো হয়। সালিসে মাতব্বরেরা কারও বক্তব্য না শুনে তাদের ইচ্ছেমতো রায় দেন। রায়ে ওই দু’জনকে ১০০টি করে জুতাপেটা, জুতার মালা পরিয়ে সারা এলাকা ঘোরানো এবং ওই বোনের ঘরে তালা ঝুলিয়ে তাকে এলাকা থেকে বের করার রায় ও সমাজচ্যুত করার হুমকি দেয়া হয়। তবে রায় ঘোষণার পরপরই ইমরান ফকির, কালু ফকির, আজিজুলসহ ৮-১০ জন এলাকাবাসীর সামনে ওই দুজনকে জুতা দিয়ে ১০০টি বাড়ি দেন। পরে জুতার মালা পরিয়ে তাদের সারা এলাকা ঘোরানো হয়। একই সঙ্গে ওই নারীর ঘরে তালা ঝুঁলিয়ে তাকে এলাকা থেকে বের করে দেয়া হয়। অমানবিক ও ন্যক্কারজনক এ ঘটনা উৎসুক জনতা শুধু দেখেছে। কিন্তু সালিসকারী ও মাতব্বরদের ভয়ে কেউ প্রতিবাদ করতে সাহস করেননি।

 

 

এ ঘটনায় শনিবার রাতে সালিসকারী কালু ফকির, ইমরান ফকির, শামীম ফকিরসহ ৭ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ৮-১০ জনকে আসামি করে রাজৈর থানায় একটি মামলা করেন ভুক্তভোগীর স্বামী। পরে এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সালিসকারী কালু ফকির, আজিজুল ফকির ও শাকিব আকনকে রোববার গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

 

 

নির্যাতনের শিকার ওই নারী বলেন, ওরা আমাকে ও আমার ভাইকে জোর করে বেঁধে গ্রামের সবার সামনে ১০০ জুতার বাড়ি দিয়েছে, জুতার মালা পরিয়ে সারা গ্রাম ঘুরিয়েছে। আবার আমার ঘরে তালা দিয়েছে। এখন আমরা তাদের ভয়ে গ্রাম ছাড়া, তাদের ভয়ে নিজের ঘরে যেতে পারছি নাহ। এখন শুনছি তারা নাকি আমাদের সমাজচ্যুত করার হুমকি দিয়েছে। এই অপমানের পর আর বেঁচে থাকতে ইচ্ছে করে?

 

 

ওই নারীর স্বামী বলেন, আমি দীর্ঘ ৩৬ বছর ধরে আমার স্ত্রীকে নিয়ে ঘরসংসার করছি। তার চরিত্র খারাপ হলে আমিই আগে জানতাম। যদি আমার স্ত্রী কোনো অপরাধ করে থাকে, তাহলে বিচার করতাম। ওনারা কেন আমার স্ত্রী ও আমার আত্মীয়কে জুতাপেটা করে জুতার মালা পরিয়ে এলাকা ঘোরাল? আমাদের সমাজচ্যুত করার হুমকি দিচ্ছে, ভয়ে আমরা কিছুই করতে পারছি না। আমাদের ছেলেমেয়ে আছে, তাদের বিয়ে দিয়েছি। নাতি-নাতনি রয়েছে। আমরা কীভাবে মানুষরে মুখ দেখাব। আমি এর বিচার চাই।

 

 

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য তারা মিয়া ব্যাপারী বলেন, ধর্মের ভাই-বোনকে কথিত বিচারের নামে একটি প্রহসনের সালিস বসানো হয়। সালিসে ওই নারীর কোনো কথা না শুনে কালু ফকির, ইমরান ফকির, শামীম ফকির, রানা ফকিররা নিজেদের ইচ্ছেমতো রায় ঘোষণা করেন। কথিত বিচারে ওই নারী ও তার ধর্ম ভাইকে যে অপমান করা হয়েছে, তার উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানাই।

 

 

রাজৈর থানার ওসি শেখ মো. সাদিক বলেন, ঘটনা শোনার সঙ্গে সঙ্গেই আমরা মামলা নিয়েছি। একদিনের মধ্যে অভিযান চালিয়ে এ ঘটনার মূল হোতা কালু ফকিরসহ তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনার সঙ্গে আরো যারা জড়িত, প্রত্যেককে আইনের আওতায় আনা হবে।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *










Facebook

Shares
© ভয়েস অব বরিশাল কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD
Shares