হিজলায় ৩ সন্তানের জননীর সাথে ফরিদ'র পরকীয়া Latest Update News of Bangladesh

শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০৫:৫৪ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
Latest Update Bangla News 24/7 আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ভয়েস অব বরিশালকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] অথবা [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।*** প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বরিশাল বিভাগের সমস্ত জেলা,উপজেলা,বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড ও ক্যাম্পাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! ফোন: ০১৭৬৩৬৫৩২৮৩




হিজলায় ৩ সন্তানের জননীর সাথে ফরিদ’র পরকীয়া

হিজলায় ৩ সন্তানের জননীর সাথে ফরিদ’র পরকীয়া




হিজলা প্রতিনিধি॥  বরিশালের হিজলায় চলতি সেপ্টেম্বরের ২ তারিখে ৫ সন্তানের জননীর পরকীয়ার কারণে, হরিনাথপুরের ছয়গাও এলাকায় স্বামী হত্যার রেশ কাটতে না কাটতে, হয়তো আরেকটি পরকীয়ার ঘটনায় লাশের অপেক্ষায় হিজলাবাসী। ঘটনাটি হিজলা গৌরব্দী ইউনিয়নের জনতা বাজারের সাথেই শংকর পাশা গ্রামের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, সফিক তালুকদারের ৩ সন্তানের স্ত্রী শিল্পী বেগমের সাথে দীর্ঘদিনের পরকীয়া প্রেম চলছে একই এলাকার সন্ত্রাসী মৎস্য জীবি ফরিদ সরদারের সাথে।

ঘটনার বিবরণে শিল্পী বেগমের বড় ছেলে মোঃ শরীফ জানায়, ৩০ আগস্ট রাতে তার মাকে বাড়ির পেছনে ফরিদের সাথে অনৈতিক অবস্থায় সে দেখতে পায়। এ অবস্থায় দেখতে পেয়ে ছোট শরীফ মাকে লাঠি দিয়ে মারার ভয় দেখায়। এ সুযোগে ফরিদ ওখান থেকে সটকে পরে। এর কিছুক্ষণ পরে, সবজি বাগানের জন্য বাড়িতে রাখা কিটনাশক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে শিল্পী বেগম। এ ব্যাপারে স্বামী সফিক তালুকদার জানায়, অনেক দিন আগে থেকেই মানুষের মুখে ফরিদের সাথে তার স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমের কথা শুনেছে।

যেহেতু তার ছোট একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আছে , সেখানেই সকাল থেকে রাত পর্যন্ত তাকে কাটাতে হয় । আর এ সুযোগটাই তারা কাজে লাগাতো। এ ঘটনা নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়াও হয় অনেক বার। এর আগে ৩ মাসের জন্য স্ত্রীকে তার বাবার বাড়িতে রেখে আসা হয়ে ছিলো।

সেখান থেকে এসেই বড় ছেলের কাছে হাতেনাতে ধরা খেয়ে, বাড়িতে থাকা কিটনাশক পান করে আত্মহত্যার জন্য। তখন সে তার প্রতিষ্ঠানেই ছিলো। খবর পেয়ে সে বাড়িতে এসেই তার স্ত্রীকে দ্রুত মুলাদী হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে সুস্থ্য করে তোলে এবং তার বাবার বাড়িতে রেখে আসে।

এরপর ১ সেপ্টেম্বর হিজলা থানায় ফরিদ সরদারের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ করে সফিক তালুকদার। লিখিত অভিযোগটির ব্যাপারে জানতে চাইলে, এ এস আই আমিনুল ইসলাম জানান, তিনি উভয় পক্ষকে ডেকেছেন। ফরিদ থানায় আসলেও সফিক আসেনি। তার কাছে আরো জানতে চাওয়া হয়, এরকম একটি ঘটনায় একজনকে হত্যা করা হয়েছে। সেখানে মামলা না নিয়ে সালিশ কেনো ডাকলেন। জবাবে তিনি জানান, মহিলা এ ব্যাপারে মুখ খুলছে না। এদিকে সফিক আরো জানায়, ছয়গাও এর ঘটনার পর, সে এবং তার সন্তানেরা জীবনের নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছে। অভিযোগ করার পরেও হিজলা থানা থেকে কোনো সাহায্য পাওয়া যাচ্ছে না। অভিযোগটির ব্যাপারে হিজলা থানা অফিসার ইনচার্জ ( ওসি ) অসীম কুমার সিকদার জানান, তাকে ঘটনার সম্পর্কে কিছুই জানানো হয়নি।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *










Facebook

Shares
© ভয়েস অব বরিশাল কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD
Shares