বরিশালে একটি আদালত ভবন গুড়িয়ে দিল প্রভাবশালীরা Latest Update News of Bangladesh

শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৭:১৭ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
Latest Update Bangla News 24/7 আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ভয়েস অব বরিশালকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] অথবা [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।*** প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বরিশাল বিভাগের সমস্ত জেলা,উপজেলা,বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড ও ক্যাম্পাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! ফোন: ০১৭৬৩৬৫৩২৮৩
সংবাদ শিরোনাম:
শক্তিশালী হচ্ছে নিম্নচাপ, আঘাত হানবে যে অঞ্চলে কলাপাড়ায় প্রতিমা ভাঙচুর ও স্বর্ণের চোখ চুরি মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার রাঙ্গাবালীতে গভীর রাতের অগ্নিকান্ডে জেলের বসতঘর পুরে ছাই ! নগরীতে দুর্ধর্ষ পেশাদার চোর চক্রের দুই সদস্য আটক সাবেক আইজিপি বেনজীরের সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ আদালতের বরিশালে ফরচুন সুজের কারখানায় বিক্ষোভ, আনসারের গুলিতে আহত ৪ শ্রমিক গভীর নিম্নচাপ হবে শুক্র সকালে, রূপ নেবে ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’ এমপি আনারের লাশ পাওয়া যায়নি, তবে হত্যার প্রমাণ মিলেছে: পশ্চিমবঙ্গ সিআইডি প্রধান প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক বরিশাল শাখার আয়োজনে প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত আগৈলঝাড়ায় চেয়ারম্যান প্রার্থীর গাড়ি ভাঙচুর-কর্মীদের মারধর




বরিশালে একটি আদালত ভবন গুড়িয়ে দিল প্রভাবশালীরা

বরিশালে একটি আদালত ভবন গুড়িয়ে দিল প্রভাবশালীরা




ভয়েস অব বরিশাল ডেস্ক॥  বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ পৌর এলাকায় অবস্থিত ঐতিহাসিক একটি আদালত ভবন প্রকাশ্যে গুড়িয়ে দিয়েছে স্থানীয় প্রভাবশালীরা। ব্রিটিশ আমলে গড়ে ওঠা এ আদালত ভবনটি এক সপ্তাহ ধরে জনসম্মুখে ভাঙা হয়। কিন্তু এটি সম্পর্কে উপজেলা প্রশাসন, থানা পুলিশসহ সংশ্লিষ্টরা রহস্যজনক কারণে চুপ রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গত ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে প্রকাশ্যে ভবনটি ভাঙা হলেও বরিশাল গণপূর্ত বিভাগ গত ৬ জানুয়ারি অজ্ঞাতদের আসামি করে মামলা করায় অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।

বরিশাল জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি এবং স্পেশাল পিপি জানিয়েছেন, প্রকাশ্যে আদালত ভবন ভাঙায় জেলা জজও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। স্থানীয় একজন শীর্ষ নেতার নির্দেশে মেহেন্দিগঞ্জ পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মনির জমাদ্দার এটি ভেঙেছে। জানা গেছে, আদালতের ওই স্থানটি দখল করার জন্যই প্রায় ২০ লাখ টাকা মূল্যের ভবনটি অবৈধভাবে ভাঙা হয়।

স্থানীয়রা জানান, ভবনের পাশেই উপজেলা পরিষদ। কিন্তু উপজেলা প্রশাসন কিংবা পুলিশ প্রশাসন থেকে কোনো বাধা দেওয়া হয়নি।খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ভবনটি ভাঙার ক্ষেত্রে কোনো দরপত্র আহ্বান করা হয়নি। সরকারি অনুমতিও নেওয়া হয়নি। কিন্তু পৌনে ২শ বছর আগের ঐতিহাসিক এ আদালত ভবন ভাঙায় প্রশাসন ছিল নিশ্চুপ। ভবনের ভেঙে ফেলা অংশ কাউন্সিলর মনিরের ঠিকাদারি কাজের নির্মাণাধীন সড়কে ফেলা হয়েছে। ওই জমি দখল করাই তাদের টার্গেট।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বরিশাল গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জেরাল্ড অলিভার গুডা বলেন, মেহেন্দিঞ্জে আদালত ভবন ভাঙার ঘটনায় প্রথমে জিডি করা হয়েছে। পরে ৬ জানুয়ারি তার অধীনস্থ উপবিভাগীয় প্রকৌশলী আশরাফুল ইসলাম বাদী হয়ে মেহেন্দিগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় অজ্ঞাতদের আসামি করা হয়েছে। সার্ভে ভেল্যু অনুযায়ী ভবনটির মূল্য ২০ লাখ টাকা উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রকাশ্যে ভবন ভাঙার ঘটনায় কেন অজ্ঞাত আসামি করা হলো এ প্রসঙ্গে তিনি জানান, মেহেন্দিগঞ্জ বিচ্ছিন্ন এলাকা হওয়ায় এ বিষয়ে তারা অবগত নন। তবে আদালত ভবন ভাঙা বিধি সম্মত হয়নি।

বরিশাল জেলা ও দায়রা জজ আদালতের স্পেশাল পিপি অ্যাডভোকেট মনসুর আহমেদ বলেন, গণপূর্তের মামলায় অজ্ঞাত নামা কেন হবে। প্রকাশ্যে দিনের বেলায় আদালত ভবনটি ভাঙা হয়েছে। কার নির্দেশে ভাঙেছে, কারা ভাঙেছে তা ইউএনও, উপজেলা পরিষদ, স্থানীয় লোকজন দেখেছে। জেলা জজ আদালত এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। মেহেন্দিগঞ্জ আদালতের বিচারক জিডি করেছেন।

তিনি বলেন, ১৮৫৬ সালে ব্রিটিশরা এই আদালতে মুন্সেফ চৌকি বসাতেন। ১৯৮৫ সালেও এখানে আদালতের কার্যক্রম চলেছে। এটি পরিত্যক্ত ঘোষণাও হয়নি। অথচ শুনেছি, স্থানীয় কাউন্সিলর মনির জমাদ্দারের নেতৃত্বে আদালত ভবন গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। মনির মেহেন্দিগঞ্জের একজন জনপ্রতিনিধির নির্দেশে এ সরকারি ভবনটি কোনো অনুমতি ছাড়াই ভেঙে ফেলেছে।

বরিশাল জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট একেএম জাহাঙ্গীর জানান, আদালত ভবন ভাঙায় গণপূর্ত বিভাগ তাকে চিঠি দেয় মামলা তৈরির জন্য। তিনি বিষয়টি জেলা জজ, ডিসি ও মন্ত্রী পদমর্যাদার আবুল হাসানাত আবদুল্লাহকে অবহিত করেন। পরে মামলার ড্রাফট প্রস্তুত করেন। তাতে মেহেন্দিগঞ্জ পৌর কাউন্সিলর মনির জমাদ্দারকে আসামি উল্লেখ করা হয়। কিন্তু গণপূর্ত রহস্যজনকভাবে তাকে আর কিছু জানায়নি। আদালত ভবন ভাঙার ঘটনায় জেলা ও দায়রা জজের পক্ষ থেকে জিডিও করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, আদালত তো ক্ষোভ প্রকাশ করতেই পারেন। একটি সরকারি ভবন নিয়ম না মেনে ভাঙায় তিনিও ক্ষুব্ধ। এর সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার হওয়া দরকার।

তবে এ বিষয়ে মেহেন্দিগঞ্জ পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও উপজেলা শ্রমিকলীগ সভাপতি মনির জমাদ্দার জানান, আদালত ভবন কারা ভেঙেছে তা তিনি জানেন না। উপজেলা পরিষদের নাকের ডগায় ভবনটি ভাঙা হয়েছে। এ ঘটনা তো ইউএনও, প্রকৌশলী, ওসির অজানা নয়। তার এলাকার মধ্যে ভবন হলেও তিনি ঘটনাস্থলে ছিলেন না।মেহেন্দিগঞ্জ থানার ওসি আবদুর রহমান জানান, এখনও কাউকে আটক করা যায়নি। তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পিযুষ চন্দ্র দে জানান, আদালত ভবন ভাঙার বিষয়ে তিনি অবগত নন। তবে তাকে ওসি জানিয়েছেন যে আদালত ভবন ভাঙার ঘটনায় গণপূর্ত মামলা দায়ের করেছে। ভবনটি ভাঙার ক্ষেত্রে নিয়ম মানা হয়েছে কিনা তা ফাইল না দেখে বলা যাবে না। তাছাড়া যেহেতু এ ঘটনায় মামলা হয়েছে সেহেতু উপজেলা প্রশাসনের কিছুই করার নেই।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *










Facebook

© ভয়েস অব বরিশাল কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD