ফের রাজনৈতিক দরজায় উঁকি দিলেন আরিফিন মোল্লা Latest Update News of Bangladesh

বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১০:৪৫ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
Latest Update Bangla News 24/7 আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ভয়েস অব বরিশালকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] অথবা [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।*** প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বরিশাল বিভাগের সমস্ত জেলা,উপজেলা,বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড ও ক্যাম্পাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! ফোন: ০১৭৬৩৬৫৩২৮৩




ফের রাজনৈতিক দরজায় উঁকি দিলেন আরিফিন মোল্লা হাসানাতের আনুগত্য স্বীকার করে এবার জানালেন প্রতিবাদ

ফের রাজনৈতিক দরজায় উঁকি দিলেন আরিফিন মোল্লা হাসানাতের আনুগত্য স্বীকার করে এবার জানালেন প্রতিবাদ




শাকিব বিপ্লব:বরিশাল জেলা আওয়ামীলীগের কর্ণধার মন্ত্রী আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর বিরুদ্ধেও ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে এগিয়ে আসলেন আরিফিন মোল্লা। দলের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্য এই নেতা হসানাত এর প্রতি অনুগত্য প্রকাশ কওে জনালেন, পিতা চেয়ে পুত্র বড় হতে পারে না। পিতা পিতাই, তার জায়গা দখল করা সম্ভব নয়। যারা এই শীর্ষ নেতার বিকল্প হিসাবে আগামী রাজনীতিতে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চায় তারা আহম্মকের স্বর্গে বসবাস করছে বলে তিনি মনে করছেন।

 

উল্লেখ্য, আবুল হসানাত আব্দুলাহ’কে অন্ধকারে রেখে জেলা আ’লীগের জনৈক এক নেতা পরিকল্পনার ছকে হাটছেন। এবং উপজেলা নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন নিয়ে দলের মধ্যে বিভাজন সৃষ্টি হাসানাত অনুসারীদেও কোনঠাসা করার সুযোগ নিয়ে নিজের প্রতি আনুগত্য সৃষ্টির অপপ্রয়াস মিডিয়ায় শিরোনাম হওয়ায় বরিশাল আওয়ামীলীগের রাজনীতির গোপন দুর্ভিসন্ধি প্রকাশ পায়।

 

এ নিয়ে দলের মধ্যে ক্রীয়া-প্রতিক্রীয়ার খবর পাওয়া গেছে। অনেকে ক্ষব্ধ হলেও মুখ খোলেননি, আবার প্রতিবাদে অগ্রসর হয়নি। এমতবস্থায় আরিফিন মোল্লা প্রতিবাদে সো”চার হয়ে উঠেছেন। গতকাল এক বিবৃতিতে তিনি জানান, জাতীয় নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত হলেও কেন্দ্রিয় নেতা আবুল হাসানাত আব্দুলাহ প্রতি তার পূর্ন সমর্থন জানিয়ে বলেন, তিনি পদ-পদবীর জন্য রাজনীতিতে আসেননি। প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি তার দূর্বলতা এবং আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর প্রতি পূর্ন সমর্থন থাকায় বরিশাল জেলার নেতৃত্ব নিয়ে কোন ষড়যন্ত্র তিনি মানতে নারাজ। তার ভাষায় এধরনের নেতাদের প্রমান সাপেক্ষে দল থেকে বহিস্কার আথবা নিস্ক্রীয় করে রাখা উচিত।

 

কারণ এরাই দলেই মধ্যে বিভাজন সৃষ্টি করে বরাবরই ভালো থাকছেন। দূর্যোগ আসলে তার শতভাগ দ্বায়ভার প্রবীন হাসানাত’র উপর চাপিয়ে দিয়ে নিজেরা থাকেন নিরাপদে। আবার কোন পদক্ষেপ ইতি বাচক হলে নেতার পাশে থেকে বাহাবা নিতে চায়। ইতিপূর্বে এধরনের উদাহরন পাওয়া গেলেও নেতা আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ উদার রাজনীতির কারনে কৌশলী পথে হাটা ষড়যন্ত্রের বাহক নেতারা সহসা প্রশ্নের মুখো মুখি হন না। বরিশাল উপজেলা নির্বাচন নিয়ে প্রার্থী চুড়ান্তের ক্ষেত্রে আবুল হাসানাত’র হাতে একক সিধান্ত থাকলেও জেলা আ’লীগের জনৈক এক নেতা তাকে ভূলভাল বুঝিয়ে অনেক হেভিওয়েট প্রার্থীকে মনোনয়ন বঞ্চিত করা হয়। এনিয়ে দলের মধ্যে এক ধরনের দাহ জ্বলছে।

 

বিচক্ষন নেতা আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর প্রস্তাবিত প্রার্থীদের হাই কমান্ড চুড়ান্ত করার ক্ষেত্রে জেলা কমিটির মতামত নিলেও আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ নিরব থেকে সকল সিদান্ত কেন্দ্রিয় কমিটির কাছে ন্যস্ত করে নিজে নিরব থাকেন।

 

সূত্র জানায়, সম্ভাবত বির্তক এড়াতে হাসানাতের এই কৌশলকে দুর্বলতা ভেবে জেলা কমিটির প্রভাবশালী ঐ নেতা হাইকমান্ডকে প্রভাবিত করে তার নিজ অনুসারীদেও মনোনয়ন লাভের সহায়তা করে। অথচ মনোনয়ন বঞ্চিতদেও বুঝানো হচ্ছে হাসানাতের কারনে তাদের এই পরিনতি।

 

বিপরিতে মনোনয়ন প্রাপ্তদেও বলা হচ্ছে ওই নেতার ভূমিকা রাখায় অনেকে দলীয় মনোনয়ন লাভ করেছেন। এই দেহাই দিয়ে বিভিন্ন প্রার্থীদেও কাছে নিজের শক্তি সার্মথ উপস্থাপন করে নিজের প্রতি অনুগত্য লাভের চেষ্টা করছেন। পাশা পাশি আগামীতে আগৈলঝড়া-গৌরনদী আসনে জাতীয় নির্বাচনে নিজের মনোনয়ন নিশ্চিত করতে কেশৈলী পন্থায় বিভিন্ন নেতাদের তার পক্ষে একট্রা করতে নান পরিকল্পনা নিয়েছেন।

 

বিষয়টি আর গোপন নেই। আরিফিন মোল্লার দ্বাবী, নবাব সিরাজউদ্দৌলার আমলে মীর্জাফরদেও ভূমিকার ন্যায় অবর্তীন হওয়া এসকল নেতাদের এখনই লাগাম টেনে ধরা দারকার। নচেত বরিশাল রাজনীতিতে আবুল হাসানাত অব্দুল্লাহ’র ইমেজে টান নিতে পারে। আরিফিন মোল্লাহ ভাষায় ক্ষমতার রাজনীতিতে গত দশ বছরে এধরনের স্বার্থপর নেতারা দলকে নয়, নিজেদের আখের গুছিয়েছে।

 

এখন চাইছে নিজেদেও নেতৃত্বের অগ্রভাগে নিয়ে আসতে। কিন্তু জনপ্রিয়তা ও নেতৃত্বেও র্শীষে থাকা আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ’র বিকল্প হওয়া এতো সহোজতর নয়। একজন নয় একাধিক নেতা ও অনুসারী এই র্শীষ নেতার পক্ষে রয়েছে এবং আগমীতেও থাকবে। হসানাতের বিপল্প হাসানাতই।

 

তার অনুপস্থিতিতে কে থাকবেন বরিশাল জেলা আ’লীগের নেতৃত্বে সে বিবেচনা সময় সাপেক্ষ। তবে যতক্ষন হাসানাত আছেন ততক্ষন অনুসরীরা তার প্রতি অনুগত্য প্রকাশ করে চলবেই। বঙ্গবদ্ধু থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর্দশের রাজনীতে আঞ্চলিক ভাবে হাসনাত একটি শক্তি ও সাহসের নাম। আরিফিন মোল্লাহ বলেন, তার বিকল্প এতো সহজ নয়। নেতার সংগঠনিত দূরদর্শিতার কারনেই বরিশাল আ’লীগ আজ শক্তিশালী কাঠামো হিসাবে দাঁড়িয়েছে। সেখানে সুবিধা ভোগীরা স্বার্থের বেঘাত ঘটলেই বেকে বসে। সুদিনে তারা হাসানাতের নাম ব্যবহার করেই চলেন। এখই সময় এসেছে এদেও চিহ্নিত করার।

 

তা না হলে হাসানাতের ইতি বাচক কাজগুলো নীতিবাচক হিসাবে তুলে ধরে নিজেদেও অবস্থান শক্ত পোক্ত করতে চাইবে। আরিফির মোল্লার দ্বারী সুদিনে সবাই তার পাশে থাকলেও দূর্দিনে অনন্ত তিনি থাকবেন নেতার পাশে। কারণ হাসানাত’এর কারনেই আজ বরিশাল আ’লীগ আজ শক্তি শালী অবস্থানে।

 

 

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *










Facebook

Shares
© ভয়েস অব বরিশাল কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD
Shares