জুলাই মাসের মধ্যেই চালু হচ্ছে বরিশাল চীফ জুডিশিয়াল আদালতের নতুন ভবন Latest Update News of Bangladesh

মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ০৩:৩৯ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
Latest Update Bangla News 24/7 আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ভয়েস অব বরিশালকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] অথবা [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।*** প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বরিশাল বিভাগের সমস্ত জেলা,উপজেলা,বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড ও ক্যাম্পাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! ফোন: ০১৭৬৩৬৫৩২৮৩




জুলাই মাসের মধ্যেই চালু হচ্ছে বরিশাল চীফ জুডিশিয়াল আদালতের নতুন ভবন

জুলাই মাসের মধ্যেই চালু হচ্ছে বরিশাল চীফ জুডিশিয়াল আদালতের নতুন ভবন




নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী জুলাই মাসের মধ্যে ব্যবহারের জন্য চালু করে দেয়া হচ্ছে বরিশাল চিফ জুডিশিয়াল আদালতের নতুন ভবন। ১০ তলা বিশিষ্ট এই ভবনের ৫ম তলা পর্যন্ত ব্যবহারের উপযোগী করে চালু করার জন্য সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে বলেছেন আইন ও বিচার বিভাগের সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক।যদিও ২০১৮ সালের মধ্যে বরিশাল জজশীপ চত্বরের জুডিসিয়াল আদালত ভবনের নির্মান কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু নানা কারণে তা সম্ভব হয়নি। সম্প্রতি বরিশালের নির্মাণাধীন চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ভবন সরেজমিনে পরিদর্শণের পর এই নির্দেশনা দেন ঠিকাদারকে। নবনির্মিত চিফ জুডিশিয়াল ১০তলা ভবনের আপাতত ৫ম তলা পর্যন্ত আগামী দেড় মাসের মধ্যে ব্যবহারের উপযোগী করে চালু করার জন্য সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে নির্দেশ দিয়েছেন আইন সচিব। ১৩টি এজলাসের মধ্যে আপাতত ৪টি এজলাস নিয়ে বিচারকার্য শুরু হতে যাচ্ছে।

বরিশাল গণপূর্ত বিভাগ ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ১২ জানুয়ারি শুরু হয় ১০ তলা বিশিষ্ট জুডিসিয়াল ভবন নির্মান কাজ। ওই দিনে আইনমন্ত্রী মো. আনিসুল হক আনুষ্ঠানিকভাবে ভবন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। এর আগে ২০১৫ সালের ২৭ ডিসেম্বর বরিশালের চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাজের অনুমোদন দেয়া হয়। ৩৫ কোটি ৮৫ লাখ ২৬ হাজার ২১৭ টাকার প্রজেক্টে ব্যয় নির্ধারন করা হয়। পরে ৩১ কোটি ৩৮ লাখ ৮৭ হাজার ৪৭৫ টাকায় কাজটি অনুমোদন দেয়া হয়। ওই অনুমোদনে ৩০ মাসের মধ্যে কাজটি সম্পন্ন করার নির্দেশ দেয়া হয়।

সেই অনুযায়ি ২০১৬ সালের ১২ জানুয়ারি কাজ শুরু হয়। কাজ শুরু হওয়ার পর থেকেই দ্রুত গতিতে চলতে থাকে আদালতটি নির্মানের কাজ। দেখতে দেখতে এখন কাজটি একদমই শেষ পর্যায়ে চলে এসেছে। শেষ হতে হয়তো আর অল্পকিছু দিন বাকি। এই ভবনটি সম্পন্ন হলে আদালতের এজলাসসহ বিচারপ্রার্থীদের দুর্ভোগ ছিলো তা সমাধান হবে। ভবনের অভাবে যে সব এজলাস এখন জেলা প্রসাশন ভবনে রয়েছে তা সব আদালত চত্বরে নিয়ে আসা হবে।

আইনজীবী ও বিচারপ্রার্থীরা জজশীপ চত্বরের মধ্যে থেকেই সব কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন। বিচারকাজের জন্য তাদের ছোটাছুটির কষ্টও লাঘব হবে। জানা গেছে, নির্মিত ১০ তলা বিশিষ্ট এই ভবনের প্রথম দুটি ফ্লোরের আয়তন ১৩ হাজার ৯১২ ও পরের ৮টি ফ্লোর ১২ হাজার ১৫৩ স্কয়ার ফিট করা হয়েছে। ভবনে বিচারক ও বিচারপ্রার্থীদের জন্য রাখা হয়েছে আলাদা ব্যবস্থা। ১০ তলা এ ভবনে ১৪ টি এজলাস থাকবে।

এর পাশাপাশি বিচারকদের খাসকামড়া, শিক্ষানবীস বিচারকদের জন্য আলাদা কক্ষ, কনফারেন্স কক্ষ, নামাজের কক্ষ, ক্যাফেটিরিয়া, গাড়ি পাকিং এর ব্যবস্থা। এছাড়াও বিচারপ্রার্থীদের সবচেয়ে বড় সমস্যা দুরীকরনে প্রতিটি ফ্লোরে রাখা হয়েছে ৪ থেকে ৫টি টয়লেট, এজলাসের থেকে একটু দুরে রাখা হয়েছে বিচারপ্রার্থীদের জন্য বসার জায়গা। আরো রয়েছে বিচারপ্রার্থীদের সাথে আসা ছোট শিশুদের খাওয়ানোর ও রাখার জন্যও সুব্যবস্থা।একই সাথে এই ভবনের ওঠা নামার জন্য দেয়া হয়েছে তিনটি লিফট। যার মধ্যে একটি বিচারকদের জন্য ও অপর দুইটি আদালতের অন্যান্য কর্মচারি ও বিচারপ্রার্থীদের জন্য থাকবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *










Facebook

Shares
© ভয়েস অব বরিশাল কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD
Shares