বিসিসির সাবেক মেয়র-প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে দুদকের অনুসন্ধান Latest Update News of Bangladesh

সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:৫৪ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
Latest Update Bangla News 24/7 আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ভয়েস অব বরিশালকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] অথবা [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।*** প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বরিশাল বিভাগের সমস্ত জেলা,উপজেলা,বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড ও ক্যাম্পাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! ফোন: ০১৭৬৩৬৫৩২৮৩




বিসিসির সাবেক মেয়র-প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে দুদকের অনুসন্ধান

বিসিসির সাবেক মেয়র-প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে দুদকের অনুসন্ধান




নিজস্ব প্রতিবেদক।। বরিশাল সিটি করপোরেশনের (বিসিসি) সাবেক মেয়র আহসান হাবিব কামাল ও তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আব্দুল মোতালেব হাওলাদারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ বিষয়ে অনুসন্ধানে নেমেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। শনিবার (২২ জুন) দুদক সূত্র এ তথ্য জানায়। দুদক বলছে, এরই মধ্যে দুর্নীতি দমন কমিশনের পক্ষ থেকে বরিশাল সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে চিঠি দেওয়া হয়েছে। যেখানে অনুসন্ধানের কাজে কিছু রেকর্ডপত্র ও তথ্যাদিও চাওয়া হয়েছে।

এদিকে চিঠি পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা বেলায়েত হাসান বাবলু। তিনি জানান, দুদকের চিঠি পাওয়ার পর থেকেই তাদের সহায়তায় সব ধরনের কার্যক্রম চলছে।এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বিসিসি’র সাবেক মেয়র আহসান হাবিব কামাল দায়িত্বে থাকাকালে তার ছেলে মো. কামরুল আহসান রুপমের মালিকানাধীন ৪টি প্রতিষ্ঠান কাজ শেষ না করেও বিল প্রদান এবং মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন না নিয়ে ২০৮ প্রকল্পের টাকা ১০ শতাংশ ঘুষের বিনিময়ে পরিশোধসহ দুর্নীতি ও টেন্ডারবাজির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ওঠে।

এর ফলে বিষয়গুলো নিয়ে অনুসন্ধানপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দুর্নীতি দমন কমিশন সম্প্রতি সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালককে দায়িত্ব দেয়। যে কর্মকর্তা অতি সম্প্রতি বিষয়টি অনুসন্ধানের জন্য বেশকিছু রেকর্ডপত্র চেয়ে করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে চিঠি দেন। জানা যায়, এ বিষয়ে দুদকের পক্ষ থেকে বিসিসির ঠিকাদারদের জামানত বাবদ প্রাপ্ত অর্থ যে ব্যাংক হিসাবে রাখা হয় তার ২০১৩ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বিবরণী চাওয়া হয়েছে।

এছাড়া সিকদার এন্টারপ্রাইজ, মিতুসী এন্টারপ্রাইজ, মোমেন সিকদার, রশিদ অ্যান্ড সন্স, এরিমা ট্রেডিং করপোরেশন, মেসার্স জেড এ এন্টারপ্রাইজ নামীয় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত্বাধিকারীর নাম, ঠিকানা ও ফোন নম্বর এবং আহসান হাবিব কামাল মেয়র থাকাকালে সিকদার এন্টারপ্রাপইজ, মিতুসী এন্টারপ্রাইজ, মোমেন সিকদার, রশিদ অ্যান্ড সন্স যেসব কাজের কার্যাদেশ পেয়েছে তার তালিকা চাওয়া হয়েছে।

এছাড়া আরসিসি গার্ডার ব্রিজ দপদপিয়া (সিটি গেট) নির্মাণ, নতুল্লাবাদ থেকে আমতলার মোড় ফোরলেন সড়কের সৌন্দর্য্যবর্ধণ, বঙ্গবন্ধু অডিটরিয়াম নির্মাণ, সিসিটিভি স্থাপন, শেরেবাংলা সড়কের উন্নয়ন (নতুল্লাবাদ থেকে কুদঘাটা পুল), রাজা বাহাদুর সড়ক ও বঙ্গবন্ধু উদ্যান সংলগ্ন পার্কের উন্নয়নসহ বেশ কয়েকটি প্রকল্পের কাগজপত্রও চেয়েছে দুদক। তবে এ বিষয়ে সাবেক মেয়র আহসান হাবিব কামালের মোবাইলে একাধিকবার কল দেওয়া হলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়।

অপরদিকে বিসিসির সাবেক তত্ত্বাবধায়ক (বর্তমান নির্বাহী) প্রকৌশলী আব্দুল মোতালেব হাওলাদারের বিরুদ্ধেও অনুসন্ধান শুরু করেছে দুদক। এ বিষয়ে প্রকৌশলী আব্দুল মোতালেব হাওলাদার সাংবাদিকদের জানান, তিনি কোনো চিঠি পাননি, তবে শুনেছেন। যদি তলব করা হয় তবে ব্যক্তিগতভাবেই তিনি এর জবাব দিবেন।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *










Facebook

Shares
© ভয়েস অব বরিশাল কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD
Shares