নববর্ষের আপ্যায়নে থাকছে না পান্তা ইলিশ Latest Update News of Bangladesh

শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:৫৫ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
Latest Update Bangla News 24/7 আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ভয়েস অব বরিশালকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] অথবা [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।*** প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বরিশাল বিভাগের সমস্ত জেলা,উপজেলা,বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড ও ক্যাম্পাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! ফোন: ০১৭৬৩৬৫৩২৮৩




নববর্ষের আপ্যায়নে থাকছে না পান্তা ইলিশ

নববর্ষের আপ্যায়নে থাকছে না পান্তা ইলিশ




এম. কে. রানা:  বাংলা নববর্ষ-১৪২৬ উদযাপন উপলক্ষে বরিশাল জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গ্রহণ করা হয়েছে নানা আয়োজন। এ উপলক্ষে ২৯চৈত্র ১৪২৫ সকালে সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ছড়াগান প্রতিযোগিতা, লোক সংগীত প্রতিযোগীতা, লোকনৃত্য প্রতিযোগীতা। ৩০চৈত্র কুইজ প্রতিযোগীতা, বিষয়: বাংলা নববর্ষ ও বঙ্গবন্ধু। ১বৈশাখ ১৪২৬ সকাল ৭টায় বঙ্গবন্ধু উদ্যান থেকে বরিশাল সার্কিট হাউজ পর্যন্ত মঙ্গল শোভাযাত্রা। পরে সকাল থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত সার্কিট হাউজে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান। ঐ দিন বিকাল তিনটায় বঙ্গবন্ধু উদ্যানে আয়োজন করা হয়েছে ঘুড়ি উড়ানো প্রতিযোগীতা।

এবার বর্ষবরণ উদযাপন উপলক্ষে কর্মসূচী সুষ্ঠভাবে বাস্তবায়নকল্পে বরিশাল জেলা প্রশাসক এস.এম. অজিয়র রহমানকে আহবায়ক করে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান জানান, পহেলা বৈশাখে আমাদের আপ্যায়নে ইলিশ থাকবেনা। ইলিশ দিয়ে পহেলা বৈশাখ উদযাপন করতে হবে এমন কোনো কথা নেই। আপ্যায়নের জন্য পান্তা থাকবে সাথে বিভিন্ন ভর্তা ও অন্য মাছ থাকবে। তবে ইলিশ থাকবে না। তথ্যমতে, ২০১৬ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পান্তা-ইলিশ বর্জন করায় সারাদেশে রাষ্ট্রীয়ভাবে ইলিশ বর্জন করা হয়েছিল। এ ধারাবাহিতা গত দু’বছর অব্যাহত থাকে। এবছরও বরিশাল জেলা প্রশাসনের সিদ্ধান্তে বরিশালে পহেলা বৈশাখে বাদ হচ্ছে ইলিশ। কিন্তু তাই বলে থেমে নেই ইলিশের উর্ধ্বমূল্য। পহেলা বৈশাখ যতই ঘনিয়ে আসছে ইলিশের মূল্য ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে। ইতোমধ্যে ৩০০ গ্রাম থেকে ৫৫০ গ্রাম ইলিশে মন প্রতি ৬ হাজার টাকা বৃদ্ধি পেয়ে গতকাল ২৬ হাজার টাকায় পাইকারিভাবে বিক্রি হয়েছে।

একইভাবে, পোর্টরোড মৎস্য আড়ত ঘুরে দেখা গেছে, ৬০০ গ্রাম থেকে ৯৫০ গ্রাম ওজনে প্রতিমন ইলিশে ৮ হাজার টাকা বৃদ্ধি পেয়ে ৪০ হাজার টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। আর ৯৫০ গ্রামের ওপরে প্রতিমন ইলিশে ২০ হাজার টাকা বেড়ে ৭০ হাজার টাকায় পাইকারি বেচাকেনা হয়েছে। মূল্য বৃদ্ধির জ্বরে পেয়ে বসেছে ইলিশ মাছ। সাংস্কৃতিক ব্যক্তিদের মতে, আসলে পান্তা-ইলিশের ইতিহাস মাত্র ২০/২২ বছরের। বেশ সফলতার সাথে ইলিশ ব্যবসায়ীরা কৌশলে এটি বাঙালিদের ঐতিহ্য হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়। মূলত এটি ইলিশ ব্যাবসায়ীদের ফায়দা লোটার একটি কৌশল। ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটটি সুকৌশলে ঢাক-ঢোল পিটিয়ে ঐতিহ্যের অযুহাতে চাঙ্গা করে রাখে পান্তা-ইলিশ সংস্কৃতি। সচেতন মহলের অভিমত, বাঙ্গালীর অনেক ঐতিহ্যই বিলীন হয়ে গেছে। যা রক্ষায় বা পুনরুদ্ধারে তেমন উদ্যোগ নেই। অথচ ঘটা করে ১০/১২ হাজার টাকা কেজি ইলিশ দিয়ে একদিনের জন্য পালন করা হয় পান্তা-ইলিশ অনুষ্ঠান।

বরিশাল সাংস্কৃতিক সমন্নয় পরিষদের সভাপতি কাজল ঘোষ বলেন, পান্তা-ইলিশ কোনো বাঙালি ঐতিহ্য নয়। এরসাথে আমরা একমত নই। বরিশালের বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি এস এম ইকবাল বলেন, প্রথাটির প্রসার এতো ব্যাপকভাবে ঘটেছে যে, অনেকটা বাঙালীদের ঐতিহ্যে গেঁথে গেছে। পান্তা-ইলিশ খাওয়া যার যার ব্যক্তিগত ব্যাপার। এ নিয়ে মন্তব্য করার কিছু নেই। এদিকে নগরীর হাতেম আলী কলেজ চৌমাথা বাজারে ইলিশ কিনতে আসা ক্রেতা আসাদুজ্জামান গাজী বলেন, আসলে আমাদের সার্বজনীন আনন্দ উৎসবের বড় অভাব। তাই পহেলা বৈশাখে পান্তা-ইলিশ বর্ষবরণের আনন্দকে অনেকটা বাড়িয়ে দেয়। সরজমিনে প্রত্যন্ত অ লে দেখা গেছে, পাশের বাড়ি ঘটা করে পান্তা-ইলিশ চলছে আর দিনমজুরের সন্তানেরা বিষয়টি আনন্দময় অনুষ্ঠান মনে করে কষ্ট পাচ্ছে। যা হয়তো অনেকেরই উপলব্দিতে আসেনা।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *










Facebook

Shares
© ভয়েস অব বরিশাল কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD
Shares