উজিরপুরে নান্টু হত্যার ঘটনায় দিনভর বিক্ষোভ , Latest Update News of Bangladesh

মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ০৪:০০ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
Latest Update Bangla News 24/7 আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ভয়েস অব বরিশালকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] অথবা [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।*** প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বরিশাল বিভাগের সমস্ত জেলা,উপজেলা,বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড ও ক্যাম্পাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! ফোন: ০১৭৬৩৬৫৩২৮৩




উজিরপুরে নান্টু হত্যার ঘটনায় দিনভর বিক্ষোভ ,

উজিরপুরে নান্টু হত্যার ঘটনায় দিনভর বিক্ষোভ ,




“নান্টু হত্যার ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান, বিএনপি নেতাসহ আসামী ৩২”
অনলাইন ডেস্ক:
বরিশালের উজিরপুরে আওয়ামীলীগের অর্ন্তদ্বন্ধে জল্লা ইউনিয়ন আাওয়ামীলীগ সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বজিত হালদার নান্টু দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহতের ঘটনায় উত্তাল উজিরপুর, দিনভর বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন, সড়ক অবরোধ করে হাজারো জনতা হত্যাকারীদের বিচার ও ফাঁসীর দাবীতে আন্দোলন করে যাচ্ছে। শোলক ইউপি চেয়ারম্যান স্থানীয় এমপি’র পি,এস সাঈদসহ বিএনপি নেতা আ’লীগরে সহযোগী সংগঠনের ৩২ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা দায়ের, গ্রেফতার ৫।

 

গত ২০ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায় জল্লা ইউনিয়নের কারফা বাজারের নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বসা অবস্থায় দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত হয় জল্লা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি বিশ্বজিত হালদার নান্টু। নিহতের পিতা মুক্তিযোদ্ধা শুকলাল হালদার বাদী হয়ে ৩২ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেন। ঐ ঘটনায় শনিবার ও রবিবার দিনভর এলাকাবাসীর সড়ক অবরোধ, মানববন্ধন বিক্ষোভ মিছিল করে। সকাল ১০টায় ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে। এ ছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন স্থানে সড়ক অবরোধ ও মানববন্ধন পালিত হয়। নান্টুর নিজ ইউনিয়ন জল্লার কারফা বাজারে হাজারো নারী-পুরুষ জমায়েত হয়ে দিনভর বিক্ষোভ মিছিল করে খুনীদের শাস্তির দাবী জানান। ঘটনার সূত্র ২০১৬ সালে ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়ন দেয়াকে নিয়ে স্থানীয় এমপি ইউনুস ও উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান ইকবাল এর মধ্যে দ্বন্ধের সূত্রপাত। ঐ নির্বাচনে উপজেলা চেয়ারম্যান এর ঘনিষ্ট সহচর নান্টু মনোনিত হয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

 

মনোনয়ন পেতে ব্যর্থ হয় এমপি সমর্থিত উর্মিলা বাড়ৈ। শুরু হয় স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের মধ্যে দন্ধ সংঘাত।পবিত্র রমজানে ইফতারিকে কেন্দ্র করে নান্টুর সমর্থকদের উপর হামলা চালায় ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মামুন শাহসহ কতিপয় সদস্য। পরিস্থিতি ঘোলাটে হলে গত ৭ জুলাই এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান, আওয়ামীলীগের সভাপতি-সম্পাদক, পৌর মেয়রসহ সকল নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে জল্লা আইডিয়াল কলেজে এক বর্ধিত সভায় উভয়ের মধ্যে বিরোধ নিষ্পত্তি করে দেওয়া হয়। সেখানেই থেমে নেই। এক মাস পূর্বে নান্টুর সমর্থক ছাত্রলীগ নেতা মিঠু বেপারীকে ইয়াবা সহ পুলিশে ধরিয়ে দেয় ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি এমপি সমর্থিত মামুন শাহ্। ইউনিয়ন পরিষদের ভিজিএফ এর ৪বস্তা চাল আটক করে মামুন শাহর নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল করা হয়। ওই ঘটনায় গোডাউনে ৪০ বস্তা চাল সিলগালা করে প্রশাসন। কয়েকদিন আগে মিঠু জেল থেকে ছাড়া পেয়ে ইয়াবা দিয়ে ফাসানো মূল পরিকল্পনাকারী এমপি সমর্থিত তাইজুল ইসলাম পান্নাকে মারধর করে। আহত পান্না উজিরপুর হাসপাতালে ভর্তি হয়।

 

এমপি ইউনুস ও উপজেলা চেয়ারম্যান সমর্থকদের মধ্যে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে একাধিক প্রকাশ্যে দন্দ সংঘাতের ঘটনা ঘটেছে। নাম প্রকাশ না করা শর্তে স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ বলেন সংঘাত ও বিশৃঙ্খলার বিষয়ে সরাসরি এমপির পিএস আবু সাইদকে দোষী মনে করেন। ওসি শিশির কুমার পাল জানান শুক্রবার রাতেই ৩জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক ও পরের দিন ২ জনকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিন (ওসি তদন্ত) জানান, গ্রেফতারকৃতদের আদালতের মাধ্যমে ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। অচিরেই হত্যা রহস্য উন্মোচন করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এলাকার সার্বিক পরিস্থিতি কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *










Facebook

Shares
© ভয়েস অব বরিশাল কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD
Shares