নিরাপদ সবজির গ্রাম হিসেবে পরিচিত গৌরনদীর ভূরঘাটা |

বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ১২:০২ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ভয়েস অব বরিশালকে জানাতে ই-মেইল করুন- inbox.voiceofbarishal@gmail.com অথবা hmhalelbsl@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।*** প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বরিশাল বিভাগের সমস্ত জেলা,উপজেলা,বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড ও ক্যাম্পাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! ফোন: ০১৭৬৩৬৫৩২৮৩




নিরাপদ সবজির গ্রাম হিসেবে পরিচিত গৌরনদীর ভূরঘাটা

নিরাপদ সবজির গ্রাম হিসেবে পরিচিত গৌরনদীর ভূরঘাটা

নিরাপদ সবজির গ্রাম হিসেবে পরিচিত গৌরনদীর ভূরঘাটা




গৌরনদী প্রতিনিধি॥ বিষমুক্ত শাকসবজি খাওয়ানোর সংকল্পে একজোট হয়েছেন বরিশালের গৌরনদীর উপজেলার খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের ভূরঘাটা গ্রামের সব কৃষক। শীত মৌসুম থেকে কৃষি বিভাগের সহযোগীতা ও পরামর্শে মালচিং পেপার পদ্ধতিতে পরিবেশবান্ধব, রাসায়নিক সার ও কীটনাশক ছাড়াই নিরাপদ সবজি আবাদ করছেন তারা।

 

এই প্রচেষ্টার কারণে গ্র্রামটি এখন নিরাপদ সবজির গ্রাম বা অরগানিক কৃষি গ্রাম হিসেবে পরিচিত। প্রায় দুই শতাধিক কৃষক ও কৃষানি এবার তাদের জমিতে চাষ করেছেন বিষমুক্ত শাকসবজি।

 

বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের পাশ ঘেষে ভূরঘাটা গ্রামের মেঠো পথ। এই পথ ধরে যতই গ্রামের ভিতরে এগোনো যায় রাস্তার দুই পাশে শুধু সবজি আর সবজি। নানা জাতের সবজিতে ভরে আছে পুরো গ্রাম। শুধু জমিতেই নয়, গ্রামের কৃষকদের বাড়ির আঙিনায়, ঘরের চালে, গাছে গাছে ঝুলে আছে নানা জাতের সবজি।

 

গ্রামের সবাই ব্যস্ত সবজিখেতে। কেউ গাছের গোড়ায় নিরানি দিচ্ছেন, কেউ বা চাষের জমি তৈরি করছেন। এমন গৌরনদী উপজেলার ভূরঘাটা নিরাপদ সবজি গ্রামের। গ্রামের প্র্র্রবেশমুখ থেকেই নামের সঙ্গে চমৎকার মিল পাওয়া যায়। উপজেলা সদর থেকে এ গ্রামের দূরত্ব প্রায় ৯ কিলোমিটার।

 

কৃষকরা মাঠের পর মাঠ টমেটো, লাউ,মিস্টিকুমড়া, বেগুন, শসা, সিম, লাল শাক, বাধাকপি, ঢেড়ষ, ধনেপাতা, ডাটাসহ বিভিন্ন সবজি চাষ করেছেন। এই গ্রামের দুই শতাধিক পরিবারগুলো সবজি চাষের ওপর নিভরশীল। বংশ পরম্পরায় ৩০-৩৫ বছর ধরে তারা সবজি চাষ করছেন। নিরাপদ সবজি চাষের জন্য কৃষকদের পরিবেশবান্ধব কৌশল শিখিয়ে দিতে গ্রামে একটি ‘কৃষক মাঠ স্কুল’ খোলা হয়েছে। স্থানীয় কৃষি অফিস থেকেও মালচিং পেপার পদ্ধতিতে নতুন নতুন সবজির প্রদর্শনী প্লট দেওয়া হয়েছে এ গ্রামে। সবজি উৎপাদনের জন্য এখন তারা জমিতে জৈবসার, গোবর, জৈব বালাইনাশক, সেক্স ফেরোমন ট্র্যাপ, হলুদ ট্র্যাপ ও বিষটোপ ব্যবহার করেন।

 

 

উপজেলা উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা দীপংকর বাড়ৈ বলেন, ভূরঘাটা গ্রামের অধিকাংশ কৃষকই বাপ-দাদার আমল থেকে সবজি চাষাবাদ করে স্বাবলম্বী হয়েছে।

 

 

উপজেলা উপসহকারী কৃষি কর্মকতা কৃষিবিদ মামুনুর রহমান জানান, কৃষি বিভাগের সহযোগীতা ও পরামর্শে মালচিং পেপার পদ্ধতিতে পরিবেশবান্ধব, রাসায়নিক সার ও কীটনাশক ছাড়াই নিরাপদ সবজি আবাদ করছেন এ গ্রামের কৃষকরা। তাদের উৎপাদিত সবজির ব্যাপক চাহিদা রয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *










Facebook

Shares
© ভয়েস অব বরিশাল কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD
Shares