পটুয়াখালীতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমিকাকে আবাসিক হোটেলে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ |

রবিবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২১, ০৮:২৪ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ভয়েস অব বরিশালকে জানাতে ই-মেইল করুন- inbox.voiceofbarishal@gmail.com অথবা hmhalelbsl@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।*** প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বরিশাল বিভাগের সমস্ত জেলা,উপজেলা,বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড ও ক্যাম্পাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! ফোন: ০১৭৬৩৬৫৩২৮৩
সংবাদ শিরোনাম:
বরগুনা পৌরসভা নির্বাচন: বিদ্রোহী প্রার্থীর স্ত্রীর ওপর ডিম হামলা বরগুনায় বিচার না পেয়ে… আমরণ অনশনে তিন বোন! গৌরনদী পৌর নির্বাচন: মেয়র হারিছকে পুণরায় নির্বাচিত করতে প্রচারণায় নেমেছে আগৈলঝাড়া উপজেলা আ. লীগ কুয়াকাটা সৈকত পরিচ্ছন্নতায় ধারাবাহিক অভিযান শুরু বাবুগঞ্জে ইউপি সদস্যকে মারধর করলেন চেয়ারম্যান ভোলায় নৌযান শ্রমিকরা পেলেন শীতবস্ত্র সরকার পতনের আন্দোলনকে ত্বরান্বিত করতে নতুন ফন্দি আঁটছে বিএনপি-জামায়াত গৌরনদীতে ডাঃ কাজী মোকলেছুর রহমানের স্মরণ সভা ও দোয়া মোনাজাত গৌরনদীতে জেলেদের নিয়ে সচেতনতা সভা বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কে মাহিন্দ্রা-কাভার্ডভ্যান সংঘর্ষে ৬ যাত্রী আহত




পটুয়াখালীতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমিকাকে আবাসিক হোটেলে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ

পটুয়াখালীতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমিকাকে আবাসিক হোটেলে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ

পটুয়াখালীতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমিকাকে আবাসিক হোটেলে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ




পটুয়াখালী প্রতিনিধি॥ বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে পর্যটনকেন্দ্র কুয়াকাটার সিলভার ক্রাইন নামের একটি আবাসিক হোটেলে আটকে রেখে প্রেমিকাকে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

 

 

এ ঘটনায় সোমবার দিবাগত রাতে ওই নরী বাদী হয়ে মহিপুর থানায় ৩ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

 

 

পুলিশ রাতেই মামলার প্রধান আসামি প্রেমিক রনি প্যাদা (২৪), সহযোগী মাইনুল (২০) ও হোটেল ম্যানেজার শহিদুল ইসলামকে আটক করেছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ।

 

 

মামলা সূত্রে জানা যায়, ১০ থেকে ১৫ দিন আগে পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার রনি প্যাদার সাথে পাশ্ববর্তী তালতলী উপজেলার শারীকখালি গ্রামের ওই যুবতীর মুঠোফোনের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই সূত্র ধরে রনি প্যাদা ১০ জানুয়ারি ওই নারীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে পর্যটনকেন্দ্র কুয়াকাটায় বেড়াতে নিয়ে যায়।

 

 

স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে আবাসিক হোটেল সিলভার ক্রাউনের ২০৬ নম্বর কক্ষে ওঠেন তারা। পরে ওই হোটেলে যুবতীকে আটকে রেখে প্রথমে রনি প্যাদা ধর্ষণ করে। পর্যায়ক্রমে তার সাথে দশমিনা থেকে আসা মাইনুল ইসলাম ধর্ষণ করে। এতে সহযোগিতা করে ওই হোটেলের ম্যানেজার শহিদুল ইসলাম।

 

 

মহিপুর থানার ওসি পরে মো. মনিরুজ্জামান বলেন, ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। আটককৃত তিন জনকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *










Facebook

Shares
© ভয়েস অব বরিশাল কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD
Shares