বরিশালের সাপলা বিলের পর পর্যটকদের আকর্ষন ভূতিয়ার পদ্মবিলে Latest Update News of Bangladesh

বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ০৫:২২ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
Latest Update Bangla News 24/7 আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ভয়েস অব বরিশালকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] অথবা [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।*** প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বরিশাল বিভাগের সমস্ত জেলা,উপজেলা,বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড ও ক্যাম্পাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! ফোন: ০১৭৬৩৬৫৩২৮৩
সংবাদ শিরোনাম:
মানুষ হওয়ার গল্প বরিশালে মেয়র সাদিকের সহযোগীতায় ছিন্নমূলদের খাওয়ালো সাংবাদিকরা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নায়ক আলমগীর হাসপাতালে নলছিটিতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, ড্রেজার মালিককে ৬০ হাজার টাকা জরিমানা ভোলায় জ্ঞাত রোগে ২o দিনে ৪o মহিষের মৃত্যু, আক্রান্ত আরও অর্ধশত করোনা: ভোলায় ইফতার নিয়ে শ্রমজীবী মানুষের পাশে ছাত্রলীগ স্বাস্থ্যবিধি না মানায় অপরাধে কাউখালীতে ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা আমতলীতে দিন-দুপুরে বৃদ্ধকে পিটিয়ে হত্যা গৌরনদী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফরহাদ মুন্সী করোনা টিকার ২য় ডোজ নিলেন পটুয়াখালীতে খাবারের প্রলোভন দেখিয়ে বাক প্রতিবন্ধি শিশুকে ধর্ষণ, বৃদ্ধ গ্রেফতার




বরিশালের সাপলা বিলের পর পর্যটকদের আকর্ষন ভূতিয়ার পদ্মবিলে

বরিশালের সাপলা বিলের পর পর্যটকদের আকর্ষন ভূতিয়ার পদ্মবিলে




অনলাইন ডেস্ক: ভূতিয়ার বিলে পদ্মফুল দেখতে দেশ-বিদেশ থেকে পর্যটকরা আসছেন। দিন যাচ্ছে আর পর্যটকদের ভিড়ে বিনোদনপ্রেমীদের প্রিয় স্পট হিসেবে রূপ নিচ্ছে ভূতিয়ার বিল। তাতে দর্শনার্থীদের মন ভরলেও এলাকাবাসীর পেট ভরছে না।

‘পদ্মফুলে কি আর পেট ভরে। বিলে আমরা ধান চাষ করতে চাই। দ্রুত জলাবদ্ধতার নিরসন চাই। আগের মতো সোনালী ফসলে মাঠ ভরা দেখতে চাই’।

খুলনার তেরখাদা উপজেলার ভূতিয়ার বিল নিয়ে এমন অভিব্যক্তি ব্যক্ত করেন স্থানীয় পাতলা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা প্রফুল্ল কুমার মরু।

আটলিয়া গ্রামের সবুজ কুমার রায় বলেন, ১৮/২০ বছর আগে এ বিলে ইরি, বোরো, আউশ, আমন ধানসহ বিভিন্ন ফসল উৎপাদিত হতো। এখন কিছুই হয় না। সবাই আশা করছিলো নদী খনন হলে আবার ভূতিয়ার বিলে ধান হবে। কিন্তু নদী খননের কাজ ধীরগতিতে হওয়ায় সে আশাও ম্লান হয়ে যাচ্ছে।

এলাকার প্রবীণরা জানান, খুলনার তেরখাদা উপজেলা ও নড়াইল জেলার অংশ বিশেষ নিয়ে প্রাকৃতিকভাবে ভূতিয়ার বিলটির সৃষ্টি। ২০০৩ সাল থেকে বিলের ২০ হাজার একর জমি স্থায়ী জলাবদ্ধতার শিকার হয়েছে। ফসল উৎপাদনও বন্ধ হয়ে গেছে। অর্ধাহারে-অনাহারে দিন কাটাচ্ছেন বিলের ওপর নির্ভরশীল মানুষজন।

২০১১ সালে খুলনার এক জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ বিলের জলাবদ্ধতা দূর করার প্রতিশ্রুতি দেন। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির সভা (একনেক) থেকে ২০১৩ সালে একটি প্রকল্প অনুমোদন করা হয়। যার লক্ষ্য হলো, ভূতিয়ার বিলের স্থায়ী জলবদ্ধতার অবসান। বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও ৪৩ হাজার হেক্টর কৃষিজমি পুনরুদ্ধার করা। পাঁচ বছর মেয়াদি এ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয় ২৮১ কোটি ৯০ লাখ টাকা। যা ২০১৩-১৪ থেকে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের মধ্যে কাজ শেষ হওয়ার কথা।

জলাবদ্ধতার কারণে বিলে পানি জমে পদ্মফুল ফুটে আকষর্ণের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে পর্যটক ভিড় করছেন বিল এলাকায়।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *










Facebook

Shares
© ভয়েস অব বরিশাল কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD
Shares