ভোলায় কার্ড পাওয়ার চার বছর পার হলেও ভাতা পাচ্ছেনা প্রতিবন্ধী কিশোরী |

শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১, ১১:০৯ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ভয়েস অব বরিশালকে জানাতে ই-মেইল করুন- inbox.voiceofbarishal@gmail.com অথবা hmhalelbsl@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।*** প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বরিশাল বিভাগের সমস্ত জেলা,উপজেলা,বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড ও ক্যাম্পাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! ফোন: ০১৭৬৩৬৫৩২৮৩
সংবাদ শিরোনাম:
রাজাপুরে অসহায় রহিমার মুখে হাসি ফোটালেন ছবির ভোলার দৌলতখানে ঢাকাগামী লঞ্চের ধাক্কায় নারী যাত্রীর পা বিচ্ছিন্ন বাড়তি চমক দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তুললেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী জ্যাকলিন জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে যুবককে হত্যা, রক্তমাখা কুড়াল উদ্ধার শেখ হাসিনা উন্নয়নবান্ধব সরকার প্রধান:নাজিরপুরে প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী বরিশাল নগরীতে পারভেজ আকন বিপ্লবের স্মরণে শোকসভা অনুষ্ঠিত লালমোহনে জমিতে বেড়া দেওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে বৃদ্ধ নিহত বরিশাল নগরীতে গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার বরিশালে মোবাইল কিনে না দেয়ায় স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা পটুয়াখালীতে ট্রলি-মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে কলেজশিক্ষক নিহত




ভোলায় কার্ড পাওয়ার চার বছর পার হলেও ভাতা পাচ্ছেনা প্রতিবন্ধী কিশোরী

ভোলায় কার্ড পাওয়ার চার বছর পার হলেও ভাতা পাচ্ছেনা প্রতিবন্ধী কিশোরী

ভোলায় কার্ড পাওয়ার চার বছর পার হলেও ভাতা পাচ্ছেনা প্রতিবন্ধী কিশোরী




চরফ্যাসন প্রতিনিধি॥ ভোলার চরফ্যাসনে প্রতিবন্ধী কার্ড পেলেও চার বছর ধরে ভাতার তালিকায় নাম ওঠেনি তানজু বেগম নামে এক কিশোরীর।

 

 

উপজেলার দুলাহাট থানার নুরাবাদ ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের মোঃ হারুনের প্রতিবন্ধী মেয়ে তানজুর পরিবারের অভিযোগ খরচের টাকা দিতে না পারায় ভাতা মিলছেনা। প্রতিবন্ধী ভাতা পাওয়ার আশায় স্থানীয় চেয়ারম্যান, মেম্বারের কাছে একাধিকবার গেলেও তারা কোন সহযোগিতা করেননি।

 

 

কিশোরীর মা সালমা বেগমের কাছ থেকে জানা যায়, প্রতিবন্ধী এক মেয়েসহ তিন সন্তান নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে তাদের পরিবার। তানজুর বাবা মোঃ হারুন পেশায় একজন জেলে। জন্মের পর থেকেই তার কন্যার হাত পা একেবারেই অচল। অভাব অনটনের সংসারে প্রতিবন্ধী মেয়ের চিকিৎসার পেছনে অনেক টাকা ব্যয় করেও কোন লাভ হয়নি। চিকিৎসার খরচ জোগাতে ভিটে বাড়ি হারিয়ে তাদের পরিবার এখন নিঃস্ব। কিডনিতে সমস্যা থাকায় স্বামী হারুন মাঝি তেমন একটা কাজ করতে পারেন না। পেশায় জেলে হয়েও তার ভাগ্যে জোটেনি জেলে কার্ড। স্থানীয় চেয়ারম্যান, মেম্বারদের কাছে সহযোগিতা চেয়ে মেয়ের নামে একটি প্রতিবন্ধী কার্ড করিয়েছেন। কিন্তু গত চার বছরে ধরে মেলেনি প্রতিবন্ধী ভাতা।

 

 

সালমা বেগম বলেন, “আমার প্রতিবন্ধী মেয়ে এখন বড় হয়েছে। মেয়েকে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নিতে পারিনা। মেয়েটির জন্য যদি একটা হুইল চেয়ার পেতাম, তাহলে খুবই ভালো হতো।”

 

 

স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ নাছির উদ্দিন বলেন, “আমার কাছে প্রতিবন্ধী মেয়েটির পরিবারের কেউ এখন পর্যন্ত আসেনি। আসলে ভাতার ব্যবস্থা করে দেয়া হবে।”

 

 

নুরাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বলেন, “মেয়েটি প্রতিবন্ধী ভাতা পাওয়ার উপযোগী। তার প্রতিবন্ধী ভাতা পাওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।”

 

 

ভোলা জেলা সমাজ সেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ নজরুল ইসলাম বলেন, “বরাদ্দের সীমাবন্ধতার কারণে অনেকেই ভাতা থেকে বঞ্চিত হয়েছে। গত বছর থেকে নতুন করে বর্ধিত আকারে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। তানজু বেগমসহ প্রকৃত প্রতিবন্ধীরা এবছর থেকে ভাতার আওতায় আসবেন। যারা ভাতা বঞ্চিত তারা পূর্বের কার্ড নিয়ে সমাজ সেবা কার্যালয়ে আসলে ভাতার ব্যবস্থা করে দেয়া হবে।”

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *










Facebook

Shares
© ভয়েস অব বরিশাল কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD
Shares